ইনস্টাগ্রাম থেকে আয় করার উপায়

অন্যান্য অনেক সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ইনস্টাগ্রাম অনেক বেশি অ্যাডভান্স একটি সোশ্যাল মিডিয়া। ফেসবুক সোশ্যাল মিডিয়ার পরই দ্বিতীয় একটি জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া হলো ইনস্টাগ্রাম। ফেসবুক থেকে আয় করার অনেক উপায় সম্পর্কে আমরা আগের পোস্টে জেনেছি। আজ আমরা জানবো দ্বিতীয় জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া ইনস্টাগ্রাম থেকে আয় করার উপায় সম্পর্কে।

প্রথমেই আলোচনা করবো যেসব কাজ গুলো শিখা এবং সম্পাদন করার মাধ্যমে আপনি ইন্সটাগ্রাম থেকে আয়
করতে পারবেন সেই সম্পর্কে।

ইনস্টাগ্রাম থেকে আয়

ইনস্টাগ্রাম ইনফ্লুয়েন্সার (Instagram Influencer)

ইন্সটাগ্রাম এর অন্যতম একটি জনপ্রিয় আয়ের উৎস হলো ইনস্টাগ্রাম ইনফ্লুয়েন্সার। এর কিছু ক্যাটাগরি রয়েছে। এর মধ্যে প্রথম ক্যাটাগরি হলো লাইফ স্টাইল ইনফ্লুয়েন্সার, ফ্যাশন ইনফ্লুয়েন্সার ইত্যাদি।

একজন ইনফ্লুয়েন্সার এর প্রথমেই যে কাজটি হয় সেটি হলো নির্দিষ্ট একটি ক্যাটাগরিতে একটি প্রোফাইল ওপেন করে সেখানে তার দর্শক বা সাপোর্টার বানানো প্রয়োজন। কারণ, ইনফ্লুয়েন্সারদের বিভিন্ন ব্যান্ড বা কোম্পানির সাথে কাজ করার জন্য অবশ্যই একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক ফলোয়ার হওয়া প্রয়োজন।

ক্লথিং বিজনেস ( Clothing Business)

৫ টি হিউম্যান রাইটস এর মধ্যে অন্যতম একটি হিউম্যান রাইটস হলো বস্ত্র। সুতরাং কাপড় কিনার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে আমরা সবাই জানি এবং ইনস্টাগ্রাম অন্যতম একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্ম যেখানে আপনি আপনার ডিজাইন করা কাপড় সেটা ওয়েস্টার্ন হোক বা দেশীয়, ছেলে বা মেয়ে যারই হোক না কেনো সেটি খুব সুন্দর করে প্রদর্শন এর মাধ্যমে বিক্রয় করে আয় করতে পারবেন।

যেহেতু ইনস্টাগ্রাম একটি ভিজুয়াল কনসেপ্ট এর উপর তৈরি সুতরাং, বিভিন্ন আকর্ষণীয় ছবি দিয়ে আপনি সহজেই আপনার বিক্রয় বাড়িয়ে ইনস্টাগ্রাম থেকে আয় করতে পারবেন।

হাতের তৈরি জিনিস (Hand Crafting)

আজকাল ইনস্টাগ্রামে অনেক মানুষ তাদের হাতের তৈরি তৈজসপত্র বিক্রি করছেন। যেমন অনেকে কাঠের তৈরি গহনা বানিয়ে বিক্রি করছেন, অনেক কাঠ বা কাপড়ের ঘর সাজানোর জিনিস, কার্ড ইত্যাদি বিক্রি করছেন। এভাবেই যে যেসব কাজে পারদর্শী এমন কিছু বানিয়ে তারা বিক্রি করছেন যেটা কিনা আয়ের অন্যতম
একটি উৎস।

ফটোগ্রাফি বা ভিডিওগ্রাফি ( Photography or videography)

আজকাল মানুষ ছবি তোলা বা ভিডিও বানানোর মতো কাজে অনেক বেশি পারদর্শী এবং ছবি এবং ভিডিওর মাধ্যমে খুব সুন্দর করে নিজেকে প্রকাশও করা যায়। মানুষ তার নিজের তোলা ছবি প্রচার করে তার ফটোগ্রাফি স্টিল শোকেস করতে পারে এবং এর মাধ্যমে তারা তারা বিভিন্ন মডেল বা ইনফ্লুয়েন্সার এর সাথে কাজ করে
থাকে এবং এর মাধ্যমে তারা নিজের জন্য আরেকটি উৎস তৈরি করে।

অনেকে আছেন যারা অনেক ভালো ভিডিও এডিটিং করতে পারেন। তারা ইনস্টাগ্রামে তাদের ভিডিও আপলোডের মাধ্যমে এডিটিং স্কিল শোকেস করতে করেন এবং ভিডিও এডিটিং এর কাজও পেতে পারেন ইনস্টাগ্রাম এর মাধ্যমে।

আর্টিস্ট (Artist)

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা আর্ট সম্পর্কিত নানা কাজে পারদর্শী। যেমন অনেকে দেয়াল আর্ট, বডি আর্ট করতে পারেন,অনেক ভালো পেইন্টিং করতে পারেন, অনেকে ভালো মেহেদী দিয়ে দিতে পারেন, অনেকেই ভালো হেয়ার স্টাইল, মেকআপ করতে পারেন। এই ক্যাটাগরির সবাই চাইলে ইন্সটাগ্রাম এ ফ্রিলেন্সার আর্টিস্ট হিসেবে কাজ করতে পারেন তাদের কাজের প্রদর্শনী করে।

ফুড ব্লগিং ( Food Blogging)

ফুড ব্লগিং এখনকার সময়ের অন্যতম একটি জনপ্রিয় কাজ। অনেকেই এটি তাদের পেশা হিসেবেও নিচ্ছেন। এবং এই পেশার শোকেসিং ইন্সটাগ্রাম এ অন্যতম একটি দারুণ উপায়ে করা সম্ভব। এবং এর মাধ্যমে সহজেই মানুষের নজরেও আসা সম্ভব।

প্রডাক্ট রিভিউয়ার ( Product Reviewer)

ইনস্টাগ্রামে আপনি চাইলে যে কোন কোম্পানির নির্মিত প্রোডাক্টের রিভিউ দিতে পারেন। সে প্রোডাক্ট ব্যবহার করে প্রচার করতে পারেন এবং এর মাধ্যমে আপনি একটি ভালো অংকের টাকা আয় করতে পারেন।

এর পাশাপাশি আপনার দেয়া লিংক বা কোড ব্যবহার করে কেউ যদি সেই প্রোডাক্ট টি কিনে থাকে তাহলে আপনি সেই কোম্পানির কাছ থেকে কিছু পারসেন্টেজ নিতে পারেন। এভাবেই প্রোডাক্ট রিভিউ করার মাধ্যমে ইন্সটাগ্রাম এর মাধ্যমে আয় করা যেতে পারে।

ইনস্টাগ্রাম ম্যানেজার বা কন্সালটেন্ট (Instagram manager or consultant)

ইনস্টাগ্রাম ম্যানেজার অথবা ইনস্টাগ্রাম কনসালটেন্ট তারাই যারা কিনা নিজের এক্সপেরিয়েন্সড এবং এক্সপার্টিজ রাখে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া সম্পর্কে। এবং তারা তাদের পরামর্শ দিয়ে অন্যের একাউন্ট কে উন্নত করে নানাভাবে। এতে করে কিভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটিভ থাকলে আর্ন করা সম্ভব সে সম্পর্কেও হেল্প করতে পারে। যেহেতু, এরকম ইনস্টাগ্রাম ম্যানেজার বা কনসালটেন্ট কে নিয়োগ করতে হয় সুতরাং, এটিও অন্যতম একটি ভালো আয়ের উৎস।

উপরের ক্যাটাগরিগুলোতে কিভাবে কাজ করতে পারেন এর কিছু ধরন নিচে আলোচনা করা হলো।

ইনস্টাগ্রাম থেকে আয় করার জন্য কিভাবে কাজ করবেন?

ব্যান্ডের সাথে কোলাবোরেইট করে :

যখনই ইন্সটাগ্রাম ইনফ্লুয়েন্সার এর আয়ের বিষয় আসে তখন অবশ্যই সেটা অনেকটা বিভিন্ন ব্যান্ডের সাথে কোলাবোরেশান এর উপর নির্ভর করে। বিভিন্ন প্রোডাক্ট ব্যবহার করে এর রিভিউ করা, নিজের মতামত দেয়া, এবং নিজের দর্শকদের সেই প্রোডাক্ট প্রয়োজন অনুযায়ী কেনার জন্য অনুপ্রাণিত করাই এখানে কাজ হয়ে থাকে। অনেকেই ভিডিও বানানোর মাধ্যমে এই কাজটি করে থাকেন। অনেকে ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে বর্ননা লিখেও নানা প্রোডাক্ট এর বর্ননা দেয়ার মাধ্যমে এই কাজগুলো করে থাকেন।

আইজিটিভি মনিটাইজেশন :

২০২০ সাল পর্যন্ত লিমিটেড কিছু দেশে আইজিটিভি মনিটাইজেশন টা চালু হয়েছিলো। ২০২১ এর শেষ অবধি বহিঃবিশ্বের বিভিন্ন দেশেও এটি পুরোপুরি ভাবে চালু করে দেয়া হতে পারে।ইন্সট্রাগ্রাম এ লং ভিডিও বানানোর পর সেটি আপলোড হলে সেটি আইজিটিভি হিসেবে সেইভ হয়। এসব বড় ভিডিও যেগুলো কমপক্ষে দুই মিনিট এর
হতে হবে সেসব ভিডিও তে কিছু নিয়ম মেনে আপলোড করতে হবে।

সেসব ভিডিও তে এড ব্যবহার এর মাধ্যমে আপনি রেভিনিউ আর্ন করতে পারেন।নির্দিষ্ট সংখ্যক ফলোয়ার(১০ হাজার) এবং আইজিটিভি ওয়াচ টাইম এর
পরই ইন্সটাগ্রাম আইজিটিভি মনিটাইজেশন শুরু হয়।

স্পন্সরশিপ এর মাধ্যমে :

ইন্সট্রাগ্রাম স্পন্সরশিপ পেতে হলে আপনার অনেক বেশি ফলোয়ার না হলেও চলবে কিন্তু আপনাকে ভালো কন্টেন্ট আপলোড করতে হবে। আপনি নানাভাবে স্পন্সরশিপ নিতে পারেন। কখনো ফ্রি প্রমোশন করে বা কখনো পেইড প্রোমোশন করে। ইন্সটাগ্রাম এ স্পন্সরশিপ পেতে হলে কিছু নিয়ম মেনে ব্যান্ডের সাথে কন্টাক্ট করার
মাধ্যমে প্রথম ধাপ আরম্ভ করতে পারেন।

এরপরের স্টেপ এ যখন সেসব ব্যান্ড আপনার প্রোফাইল দেখবে এবং এনালাইসিস করবে তারা আপনার প্রোফাইল পছন্দ করলে তবেই আপনি স্পন্সরশিপ পেতে
পারেন। স্পন্সরশিপ এর মাধ্যমে আপনি ফ্রি প্রোডাক্ট পেতে পারেন এবং বিভিন্ন ভাবে আয় ও করতে পারেন।

নিজের তৈরি পন্য বিক্রি করে :

অনেকেই নানা ধরনের পন্য বিক্রি করে থাকেন। ইন্সটাগ্রাম সেইসব পন্যের ছবি আপলোড করে প্রচার করার জন্য খুব ভালো একটা জায়গা। তাই ইন্সটাগ্রাম এ নিজের পন্যের প্রচার এবং বিক্রয় এর মাধ্যমে ও আয় করা করা সম্ভব।

অন্যের ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট প্রমোট করে :

অনেকেই নিজের ইন্সটাগ্রাম একাউন্ট নিয়ে স্ট্রাগল করছেন। কারণ ইন্সটাগ্রাম এ টার্গেটেড ফলোয়ার বানানো কিছুটা কঠিন। তাই কারো যদি ফলোয়ার অনেক ভালো থাকে তারা চাইলে অন্যের ইনস্টাগ্রাম একাউন্টটি প্রমোট করে ও বিভিন্ন বিভিন্ন ভাবে আয় করতে পারেন।

ইন্সট্রাগ্রাম এ আয় করতে হলে সেখানে নিয়মিত পোস্ট করা এবং নিজের ডেডিকেশন এর সাথে কাজ করা
প্রয়োজন। এবং ইন্সটাগ্রাম সোশ্যাল মিডিয়া তে আপনি তখনই নিজেকে সফল করে তুলতে পারবেন যখন আপনি
আপনার কাজ কে ভালোবাসবেন, বুদ্ধিমত্তা এবং ধৈর্য প্রদর্শন করবেন।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (17 votes)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!