তিসির তেল বানানোর নিয়ম

তিসির তেল বানানোর নিয়ম – আমরা সবাই জানি আমাদের শারীরিক নানা সমস্যার সমাধানে এবং সৌন্দর্য বর্ধনে তিসি নানাভাবে আমাদের জন্য কাজ করে থাকে। তিসি একটি প্রাকৃতিক উপাদান যাতে রয়েছে প্রোটিন, ওমেগা-থ্রি এসিড এবং এন্টিঅক্সিজেন যা আমাদের চুল পড়া রোধ করে এবং চুল ঘন করতে অনেক বেশি সহায়তা করে।

বাজারে অনেক রকম তেল পাওয়া যায় যা আমরা হেয়ার গ্রোথ এর জন্য ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আমাদের বাজার থেকে কেনা তেলে থাকতে পারে নানা ক্যামিকেল অথবা বিভিন্ন হার্মফুল ইনগ্রিডিয়েন্ট যা আমাদের চুলের হেয়ার গ্রোথকে প্রমোটতো করবেই না বরং চুলকে অনেকটা ক্ষতিগ্রস্ত ও করতে পারে। তাই বাজার থেকে তেল না কিনে প্রাকৃতিক উপকরণ দিয়ে বাসায় কিভাবে আপনি তেল বানাতে পারেন সে প্রক্রিয়াটি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো আর আজকে কথা বলবো তিসির তেল বানানোর প্রক্রিয়া নিয়ে।

তিসির তেল বানানোর নিয়ম

উপকরণ সমূহ

  • একটি পরিষ্কার পাত্র এবং চামচ
  • নারিকেল তেল /অলিভ অয়েল
  • তিসির বীজ
  • ভিটামিন ই ক্যাপসুল

বানানোর প্রক্রিয়া

প্রথমেই একটি পরিষ্কার পাত্রে পরিমাণমতো তেল নিয়ে নিয়ে তা গরম করে নিন। এতে পাঁচ থেকে ছয় চামচ তিসির বীজ দিয়ে তা আরো কিছুক্ষণ গরম করতে থাকুন। ৫-৬ মিনিটের মধ্যে খেয়াল করবেন তিসির বীজ থেকে একটি আঠালো পদার্থ বের হওয়া শুরু হয়েছে। পরিষ্কার একটি চামচ দিয়ে বীজসহ তেলটি ভালোভাবে নাড়তে থাকুন। একটু ঘন আকার ধারণ করলে চুলা বন্ধ করে দিন।

তেলটি ঠাণ্ডা হবার জন্য সাধারণ তাপমাত্রায় রেখে দিন। তেলটি ঠান্ডা হয়ে গেলে একটি পরিষ্কার ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে নিন। এখন ২-৩টি ভিটামিন ই ক্যাপসুল কেটে তার ভিতরের তরল পদার্থ টি ওই তেলের সাথে মিক্স করে নিন। তৈরি হয়ে গেল সবার পছন্দের তিসির তেল। এই তেলটি বানিয়ে ঘরে সাধারণ তাপমাত্রায় রেখে দুই থেকে তিন সপ্তাহ পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারবেন।

উপকারিতা

এই তেল ব্যবহারে নতুন চুল গজায় যা চুলকে ঘন করে, চুল পড়া কমে, খুশকি দূর করে, চুল সিল্কি ও সাইনি হয় এবং চুল লম্বা করতে সহায়তা করে। মাত্র এক সপ্তাহ ব্যবহারে এই তেলের অনেক ভাল ফলাফল দেখা যায়।

আর পড়ুনঃ

Conclusion

তাহলে তিসির তেল বানানোর নিয়ম সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেলেন। দেখলেন তো, কত সহজেই ঘরে বসে তিসির তেল বানানো যায়। বাজার থেকে ভেজাল মিশ্রিত তেল কিনে এনে নিজের ক্ষতি করবেন না। আমার দেখানো প্রক্রিয়ায় ঘরে বসে তিসির তেল বানিয়ে নিন। এই পোস্ট সম্পর্কে আপনার মতামত এবং যেকোন প্রশ্ন অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে জানান। পরবর্তি পোস্টে তিসি খাওয়ার নিয়ম এবং উপকারিতা নিয়ে আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য থাকবে। ধন্যবাদ। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

নিচের পোস্টগুলো পড়ে নিন

5/5 - (15 votes)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!