ফেসবুক পেজ কিভাবে চালাতে হয়

ফেসবুক পেজ কিভাবে চালাতে হয় তা আজকের পোস্টে ধাপে ধাপে জানবেন এবং পরিপূর্ণ গাইডলাইন পাবেন। ফেসবুক পেজ চালানোর নিয়ম ফেসবুক নিজে নির্ধারণ করে দিয়েছে। যেসব নিয়ম কানুন মানলে আপনার পেজটি যথেষ্ট রিচ পাবে, আপনার যদি ই-কমার্স পেজ হয় তাহলে কিভাবে সেল বাড়াতে পারবেন এবং ফেসবুক পেজের যাবতীয় ফিচার সম্পর্কে আলোচনা করব।

ফেসবুক পেজ কিভাবে চালাতে হয় পোস্ট টি কাদের জন্য চলুন দেখে নিই

  • আপনার যদি ফেসবুকে কোন পেইজ থাকে
  • আপনি যদি ফেসবুক পেজ খুলে ই-কমার্স বিজনেজ করেন
  • আপনার বিজনেসের জন্য ফেসবুক পেজে অনলাইন প্রেজেন্স বাড়াতে চান
  • আপনি যদি আপনার বিজনেসের জন্য কোন ফেসবুক পেজ ম্যানেজার বা ডিজিটাল মার্কেটার নিয়োগ করতে চান
  • আপনি যদি ফেসবুক পেজ ম্যানেজার বা বিজনেস ম্যানেজার হিসেবে কোন কোম্পানিতে জব করতে চান
  • অনলাইনে ইনকাম বা ফ্রিল্যান্সিং করতে চান

এর মধ্যে যেকোন একটি যদি আপনার সাথে মিলে, তাহলে পোস্ট টি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ফেসবুক পেজ চালানোর নিয়ম যদি আপনি ভালোভাবে শিখে ফেলতে পারেন তাহলে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা আয় করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো পোস্টে সব গাইডলাইন দিয়েছি।

আপনি যদি ২০১৪ বা তার আগে থেকে ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন তাহলে ফেসবুকের আপডেট সম্পর্কে আপনার স্পষ্ট ধারণা থাকবে। তাছাড়া, নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন ফেসবুক প্রতিনিয়ত কতটা আপডেট হচ্ছে। বর্তমানে অসংখ্য বিজনেজ দেখা যাচ্ছে শুধুমাত্র ফেসবুক পেজের উপর বেজ করে চলছে।

ফেসবুক পেজ কিভাবে চালাতে হয় আমাদের কাছে অনেকেই এই প্রশ্নটি করেছেন। আরো কিছু কমন প্রশ্ন পেয়েছি, আমি বুস্ট করে আগে ভাল রেজাল্ট পেতাম এখন পাচ্ছি না, ঠিকমত রিচ হচ্ছে না, বুস্টিং এর খরচ বেশি দিয়েও কাজ হচ্ছে না, সেল করতে পারছি না কি করব?

আমরা তাদেরকে বিভিন্নভাবে সমস্যার সমাধান দিয়েছি। সবার ক্ষেত্রেই দেখা গেছে ফেসবুকের নতুন নতুন এলগরিদমের আপডেটের কারণে এবং ফেসবুক পেজ চালানোর নিয়ম, যেটা ফেসবুক নির্ধারণ করে দিয়েছে, সঠিক ভাবে না জানার কারণে তাদের সমস্যা গুলো দেখা দিয়েছে। এখন আপনি সবকিছু সম্পর্কে পরিপূর্ণ ভাবে জানতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নিই

ফেসবুক পেজ কিভাবে চালাতে হয়

প্রথমে আমরা ফেসবুকের পেইজ পলিসি সম্পর্কে জানব। তার আগে আমি আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট লিখেছি কিভাবে ফেসবুক পেজ খুলতে হয় তা নিয়ে। এটি আপনাকে অবশ্যই দেখে নিতে হবে। যদি আপনার অলরেডি পেইজ থাকে তাহলে অবশ্যই এই গাইডলাইন গুলো মেনে আপনার পেইজটি ভালোভাবে অপটিমাইজ করে নিতে হবে।

ফেসবুক পেজ স্পেসিফিক পলিসি

  • পেজ অথরিটি টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে এবং কোনো কিছু পোস্ট করার আগে তাঁদের অবস্থান (প্রাইমারি হোম লোকেশন) ফেসবুককে নিশ্চিত করতে হবে।
  • পেজের নামের বানান ভুল, ব্যাকরণগত ভুল এবং আপনার পেজের নামে কোন প্রকার সিম্বল ব্যবহার করা যাবে না
  • আপনার পেজে পোস্ট করা কন্টেন্ট সবাই দেখতে পারবে যারা আপনার পেজটি দেখতে পারে
  • আপনার পেজের কভার ফটো বা প্রোফাইল ছবিতে অবশ্যই একটি যাচাইকৃত চেকমার্ক অন্তর্ভুক্ত করা উচিত নয় এবং থার্ড পার্টি প্রোডাক্ট, ব্র্যান্ড বা স্পনসরও অন্তর্ভুক্ত করা উচিত নয়।
  • আপনার পেজে কোন প্রকার ফার্মাসিউটিক্যাল পণ্য বিক্রি করতে পারবেন না
  • প্রযোজ্য আইন এবং বিধিমালা মেনে চলার জন্য আপনাকে ফেসবুক পেজ গেটিং কার্যকারিতাটি ব্যবহার করে বয়স অনুসারে অ্যাক্সেসকে সীমাবদ্ধ করতে হবে।
  • আপনার পেজ থেকে থার্ড পার্টি কোন লিংক শেয়ার করার সময়, আপনাকে অবশ্যই পোস্ট পূর্বরূপের কোনও ইলিমেন্ট সম্পাদনা করতে হবে না।
  • কোন স্থির চিত্র ভিডিও আকারে পোস্ট করা যাবে না
  • পেজের নাম পরিবর্তন এবং অবশ্যই পেজ মার্জ করবেন না
  • পণ্য বিক্রি করার জন্য অথবা যেকোন পেজ প্রমোশন ফেসবুকের কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড মেনে করতে হবে
  • থার্ড পার্টি ওয়েবসাইটে ট্রাফিক ড্রাইভ করার সময় সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। ইরিলিভেন্ট কন্টেন্ট দিয়ে ট্রাফিক ড্রাইভ করা যাবে না
  • কোন প্রকার কপি কন্টেন্ট পোস্ট করা যাবে না

জব পলিসি এবং ইভেন্ট পলিসি অবশ্যই এই লিংকে দেখে নিন

https://www.facebook.com/policies/pages_groups_events/

ফেসবুক পেজে কিছু জিনিস পোস্ট করা অবৈধ। যেমন, ইস্যু, ইলেকশন এবং পলিটিক্স। এই তিন ধরণের বিষয়ে আপনি কখনো পোস্ট করবেন না বা কখনো ক্যাম্পেইন রান করতে পারবেন না। যদি করেন তাহলে আপনার এড একাউন্ট ব্লক করে দেয়া হবে।

কম্পিটিটর এনালাইস

ফেসবুক এড লাইব্রেরির মাধ্যমে আপনি খুব সহজে আপনার কম্পিটিটর এনালাইসিস করতে পারবেন। আপনার কম্পিটিটর কোন ধরণের বিষয় নিয়ে কাজ করছে তা আপনি এড লাইব্রেরি থেকে বুঝে নিতে পারবেন। এজন্য নিচের লিংকে গিয়ে আপনার কম্পিটিটরের পেইজের নাম লিখে সার্চ করুন। সব ইনফরমেশন পেয়ে যাবেন।

https://www.facebook.com/ads/library

আপনার পেজের অর্গানিক রিচ ঠিক রাখতে কিছু নিয়ম মেনে পোস্ট করতে হবে। এইজন্য ফেসবুকের নির্দিষ্ট পোস্ট ক্যালেন্ডার আছে। চলুন দেখে নিই

ফেসবুক কন্টেন্ট ক্যালেন্ডার

এই জিনিস টা মনে রাখা আপনার জন্য খুবই ইম্পোর্ট্যান্ট। সবসময় মনে রাখতে হবে আপনি যদি মঙ্গলবার দিন কোন পোস্ট করেন তাহলে আপনি একদমই রিচ পাবেন না। কারণ  ফেসবুক প্রতি সপ্তাহের সোমবার দিন তাদের সার্ভার আপডেট করে থাকে।

আপনি যদি বৃহস্পতিবার বা রবিবারে কোন পোস্ট করেন তাহলে সবচেয়ে বেশি রিচ পাবেন। আর আপনার পোস্ট করতে হবে সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টার মধ্যে। তাহলে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে রিচ পাবেন। আবার আপনি যদি আজকে একটি পোস্ট করে ঘুমিয়ে যান, ১মাস পরে আবার পোস্ট করেন, তাহলে দেখবেন রিচ একেবারেই কমে গেছে।

তাই আপনাকে রেগুলার পোস্ট করতে হবে। প্রতি সপ্তাহে অন্তত দুইটা বা একটা পোস্ট করতেই হবে। তাই আপনি অবশ্যই নিজের মত করে একটি পোস্ট ক্যালেন্ডার তৈরি করে নিন।

পোস্ট করার নিয়ম

আমার আগের পোস্টে প্র্যাকটিক্যালি দেখিয়েছি কিভাবে অপটিমাইজ করে পোস্ট করবেন। আপনার পোস্টের ডেসক্রিপশন লেখার সময় অবশ্যই এমন সব ওয়ার্ড ব্যবহার করবেন, যেগুলো মানুষ সচরাচর সার্চ করে থাকে। ভিডিও পোস্ট করার সময় অডিয়েন্স টার্গেট করে দিতে হবে। আর আপনার পোস্টের প্রতিটি ছবিই ভালোভাবে অপটিমাইজ করে দিতে হবে। তারপর ডেসক্রিপশনে হ্যাশ ট্যাগ ব্যবহার করবেন।

পেইজ রোলস

আপনার পেইজে কাউকে এক্সেস দিতে হলে আপনকে পেজ সেটিংস থেকে পেজ রোলস অপশনে যেতে হবে। এখানে বেশ কিছু অপশন পাবেন। আপনি কাউকে এডমিন এক্সেস দিলে সে আপনার পেজে সবকিছু করতে পারবে। এমনকি আপনাকে এডমিন থেকে কিক আউট করে দিতে পারবে।

পেজে ইডিটর বা মোডারেটর এক্সেস দিলে সে আপনার পেজে অনেক কাজই করতে পারবে না। তাই আপনি যখন কাউকে আপনার পেজে কাজ করতে দিবেন তখন এডমিন এক্সেস দিতে হতে পারে। আবার আপনি যদি কারো পেজে কাজ করতে যান তাহলে আপনি সরাসরি তার কাছে এডমিন এক্সেস চাইলে সে আপনাকে দিয়ে কাজ করাবে না।

এই সমস্যার সমাধান পেতে ফেসবুক বিজনেস একাউন্ট ক্রিয়েট করতে হবে। একবার যদি আপনার পেজটি বিজনেস একাউন্টের আন্ডারে নিয়ে যান, তাহলে আপনার আর কোন টেনশন করার দরকার নেই। আপনি যাকে খুশি এডমিন এক্সেস দিতে পারবেন। আপনার পেজ আর হ্যাক হবার সম্ভাবনা থাকবে না।

ফেসবুক বিজনেস ম্যানেজার

এবার আপনাকে ফেসবুক বিজনেজ ম্যানেজার সম্পর্কে জানতে হবে। ফেসবুকের নতুন আপডেট আসার পর বিজনেজ একাউন্ট ক্রিয়েট করা কিছুটা ঝামেলার হয়ে গিয়েছে। আপনি যখন বিজনেজ একাউন্ট ক্রিয়েট করতে যাবেন, সাধারণত আপনার জিমেইল একাউন্ট দিবেন। কিন্তু এখানে আপনার কাছে তারা বিজনেজ ইমেইল চাইবে।

বিজনেস ইমেইল এইরকম, zahid@notekhata.com এই বিষয়ে পরবর্তী পোস্টে বিস্তারিত থাকবে। এখন চলুন দেখি আপনি যখন আপনার জিমেইল দিবেন, আপনার কি সমস্যা হতে পারে?

ফেসবুক যেহেতু তাদের প্লাটফর্মে আপনাকে বিজনেস করতে দিবে, তাই আপনার পরিচয় তাদের যাচাই করার প্রয়োজন আছে। আপনি যখনই জিমেইল টা দিবেন তখনই আপনার একাউন্ট তারা রিভিউ তে নিয়ে নিবে। তখন আপনাকে আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ডের স্ক্যান কপি সাবমিট করতে হবে। তাহলে তারা ১দিনের মধ্যে আপনার একাউন্ট তারা ভেরিফাই করে দিবে। তারপর আপনার পেজটি বিজনেস একাউন্টের আন্ডারে নিয়ে নিন।

ক্যাম্পেইন রানিং

এটি অনেক ব্রড টপিক। এই পোস্টে কভার করা সম্ভব নয়। পরবর্তী আরেকটি পোস্টে বিস্তারিত থাকবে। যে জিনিসটা আপনার জেনে রাখা খুবই জরুরি তা হল, আপনার পেজে যেকোন ক্যাম্পেইন অবশ্যই আপনার বিজনেস একাউন্ট থেকে রান করবেন। তাহলে আপনি সবচেয়ে কম খরচে অনেক বেশি রিচ করতে পারবেন এবং একদম স্পেসিফিক অডিয়েন্সের কাছে রিচ করতে পারবেন এবং আপনার কাঙ্ক্ষিত সেল জেনারেট করতে পারবেন।

তাই আপনি যখন কাউকে আপনার পেজে ক্যাম্পেইন রান করতে দিবেন, তখন তাকে বিজনেস একাউন্ট থেকে ক্যাম্পেইন রান করতে বলবেন। এজন্য তাকে আপনার বিজনেস একাউন্টের এক্সেস দিতে হবে। আপনার বিজনেস একাউন্টে গেলে, এড পিপল নামক অপশন পাবেন। সেখান থেকে এক্সেস দিতে পারবেন।

Conclusion

কিভাবে ফেসবুক পেজ চালাতে হয় তা আপনি পরিপূর্ণভাবে জানতে পারলেন। এই নিয়মগুলো মানলে আপনার পেজের রিচ হওয়া নিয়ে আর ভাবতে হবে না। আর একটা বিষয় হল ফেসবুক নিজেই পেজের অর্গানিক রিচ কমিয়ে দিয়েছে। এজন্য আপনাকে শেয়ার বাড়াতে হবে। সবসময় এমন কন্টেন্ট পোস্ট করতে হবে যে গুলোতে মানুষের ইন্টারেস্ট আছে।

ছাত্রদের জন্য অনলাইনে আয় করার অনেক সুন্দর ও সহজ উপায় হতে পারে ফেসবুক ম্যানেজার হিসেবে কাজ করা। মোবাইল দিয়ে টাকা আয় এবং ফ্রিল্যান্সিং গাইডলাইন দেখে নিন আমাদের ওয়েবসাইট থেকে। আপনার যেকোন প্রশ্ন কমেন্ট করে জানান। আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে কন্টাক্ট পেজে গিয়ে মেসেজ দিন অথবা আমাদের ফেসবুক পেজে গিয়ে মেসেজ দিন। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *