বৃত্তাকার অর্থনীতি: টেকসই উন্নয়ন ও জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় অন্যতম উপায়

বৈশ্বিক অর্থনীতির ক্রমবর্ধমান দাবির কারণে পৃথিবীর সম্পদ পরিকল্পনাহীনভাবে উদ্বেগজনক হারে ব্যবহৃত হচ্ছে এবং বর্জ্য ও দূষণ দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। টেকসই (Sustainable) কার্যক্রম জোরদার করতে “বৃত্তাকার অর্থনীতি”র ব্যাপক ভূমিকা আছে, তবে এই ধারণার অর্থ কী? কীভাবে এটি গ্রহটিকে বাঁচাতে ও বৈশ্বিক জলবায়ু সংকট মোকাবেলায় সহায়তা করতে পারে?

১. যথারীতি কার্যক্রম, বিপর্যয়ের পথ

পৃথিবীর অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালিত হওয়ার পথে যদি আমরা কিছু বড় সামঞ্জস্য না করে, তবে অনেক পর্যবেক্ষক মনে করেন যথারীতি ব্যবসা আমাদের জন্য বিপর্যয়ের পথ উন্মুক্ত করে দিবে। 

বর্তমান সময়ে আমরা যেভাবে প্রাকৃতিক সম্পদ আহরণ ও প্রক্রিয়া করছি, তাতে খুব অচিরেই 90% জীববৈচিত্র্য হ্রাস পাবে, পানি স্বল্পতা দেখা দিবে এবং ক্ষতিকারক বিভিন্ন উপাদান নির্গমনের জন্য উল্লেখযোগ্যভাবে জলবায়ু পরিবর্তনের সম্মুখীন হতে হবে। 

গত তিন দশকে বিশ্বজুড়ে পৃথিবী থেকে কাঁচামাল উত্তোলনের পরিমাণ দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে। এবং পরিসংখ্যান বলছে, বর্তমান হারে এগোতে থাকলে ২০৬০ সালের মধ্যে আবার পরিমাণ দ্বিগুণ হতে চলেছে। 

বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত জানার জন্য জাতিসংঘ কর্তৃক তৈরি করা আন্তর্জাতিক রিসার্চ প্যানেল অনুসারে, আমাদের বর্তমান ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডের জন্য এই পৃথিবীর তাপমাত্রা 3 থেকে 6 ডিগ্রি বৃদ্ধি পাবে। যা পৃথিবীর অন্যান্য জীবের পাশাপাশি মানুষের জন্য মারাত্মক হুমকি। 

তাই শুধু কার্বন মুক্ত অর্থনীতি নয়, বৃত্তাকার অর্থনীতি কেউ আমাদের যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখতে হবে।

২. বৃত্তাকার অর্থনীতি কি? 

জাতিসংঘ পরিবেশ অধিবেশন ২০১৯ অনুসারে, বৃত্তাকার অর্থনীতি (Circular Economy) হলো এমন একটি মডেল যেখানে পণ্য ও উপকরণ গুলো পুনর্ব্যবহার পুনঃনির্মাণ, পুনরুদ্ধারএবং অর্থনীতিতে বজায় রাখার জন্য পরিকল্পনা করা হয়।

বৃত্তাকার অর্থনীতি মডেলের জন্য ভূগর্ভস্থ ভূ-উপরিস্থ সম্পদ আহরণের পরিমাণ কমে যাবে, সম্পদ অপচয় ও বর্জ্য উৎপাদন কম হবে, কর্মসংস্থান কম প্রয়োজন হবে এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জলবায়ু পরিবর্তনে মুখ্য ভূমিকা পালনকারী গ্রীন হাউজ গ্যাস নির্গমনের পরিমাণ হ্রাস করা সম্ভব হবে।

এই মডেলটি (Circular Economy) প্রচলিত রিসাইকেল শব্দ থেকে আরও ব্যাপক ও বিস্তৃত অর্থে ব্যবহৃত হয়‌। বৃত্তাকার অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠিত হওয়ার জন্য ঘনঘন পণ্য ক্রয়, বাতিল ও প্রতিস্থাপন এর পরিবর্তে পণ্য ব্যবহারে মিতব্যয়ী ও সচেতন হতে হবে। প্রভাবশালী ব্যবসায়ী থেকে ভোক্তা, প্রধানমন্ত্রী থেকে সাধারন জনগণকে সকল ধরনের কাঁচামাল ও পণ্য মূল্যায়ন করতে হবে অর্থাৎ কাঁচ থেকে মূল্যবান ধাতু, প্লাস্টিক থেকে সামান্য তন্তু পর্যন্ত যথাযথ ব্যবহার ও সেগুলো প্রতিস্থাপন এর আগে মেরামত করে পুনরায় ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।

৩. আবর্জনাকে সম্পদে পরিবর্তন 

উন্নত বিশ্ব ও উন্নয়নশীল দেশগুলো বৃত্তাকার অর্থনীতির মূল ধারা গুলো সাদরে গ্রহণ করেছে এবং অসংখ্য বড়বোন কম্পানি ইতিমধ্যে স্বীকার করেছে তারা এর মাধ্যমে যথেষ্ট উপার্জন করতে সক্ষম। United Nations Economic Commission for Europe (UNECE)এর প্রধান, Olga Algayerova বলেন, আমাদের অর্থনীতি গুলোকে বৃত্তাকার করার মাধ্যমে আজীবন নিশ্চয়তা প্রদান করা যায় এবং এর মাধ্যমে 2040 সালের মাঝে প্রায় 1.4 মিলিয়ন কর্মক্ষেত্র সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

উদাহরণস্বরূপ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাশ্রয়ী ও উচ্চমানের আসবাবের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় Kaiyo আমি একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস তৈরি হয় যারা আসবাবপত্র মেরামত ও পুনরায় ব্যবহারযোগ্য করে ধরে। এখানে উল্লেখযোগ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি বছর প্রায় 15 মিলিয়ন টন ফার্নিচার ল্যান্ডফিলে(আবর্জনাভূমি) নষ্ট হয়ে যায়।

আফ্রিকাকে ছোট-বড় অনেক প্রকল্প রয়েছে যা সম্ভাব্য সবচেয়ে কার্যকর উপায় বৃত্তাকার অর্থনীতির মূলনীতি গুলো সমর্থন করে। একটি আদর্শ উদাহরণ কেনিয়ায় জেঞ্জ মেকার্স। তার প্রতিষ্ঠানটি নির্মাণ শিল্পের জন্য সম্পূর্ণ বর্জ্য থেকে ব্রিকস্ তৈরি করে। UN Champion of Earth পুরস্কারজয়ী তরুণ উদ্যোক্তা Nazambi Matee বলেন যে তিনি আক্ষরিক অর্থেই আবর্জনাকে নগদে পরিণত করছেন। তাঁর(her) মুখোমুখি হওয়ার সবচেয়ে বড় সমস্যাটি হল কিভাবে এর চাহিদা বজায় রাখা যায়। 

বৃত্তাকার অর্থনীতি- জরদানে প্লাস্টিক রিসাইকেল
জরদানে প্লাস্টিক রিসাইকেল

প্রতিদিন জিঞ্জ মেকাররা প্রায় ৫০০ কিলো বর্জ্য পুনর্ব্যবহার করেন এবং 1500 প্লাস্টিকের ইট তৈরি করতে পারে। পাশাপাশি, second-hand জামা কাপড় কেনা বেচা জঞ্জাল  কমাতে এবং পোশাকগুলো পুনরায় ব্যবহারযোগ্য করে তুলতে সাহায্য করে। 

৪. সরকারকে প্রথম পদক্ষেপ নিতে হবে

বৃত্তাকার অর্থনৈতিক রূপান্তর এবং ত্বরান্বিত করার জন্য সরকারকে সম্পূর্ণ জড়িত হতে হবে। সম্প্রতি কিছু দেশ এবং অঞ্চলে উল্লেখযোগ্য হারে সম্পদ রিসাইকেল এবং অপচয় রোধ করার জন্য রাষ্ট্র প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়েছে। আমেরিকান সরকার 2035 সালের মধ্যে ব্যাপক আকারে Energy-efficient বাড়ি নির্মাণ, ডাক্তারি সহ সকল ধরনের রাষ্ট্রীয় যানবাহনকে বিদ্যুতায়িত করা এবার বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রক্রিয়া কার্বন মুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে।

আফ্রিকা, রুয়ান্ডা, নাইজেরিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকা একত্র হয়ে African Circular Economy Alliance জোট প্রতিষ্ঠা করেছে, যা উক্ত মহাদেশে বৃত্তাকা্র অর্থনীতি ব্যাপকভাবে গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছে। অন্যদিকে, মার্কিন মোটর সংস্থা ফোর্ড জানিয়েছে, ২০২২ সালের মাঝে তারা প্রথম সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক পিক-আপ ট্রাক বাজারে আনতে যাচ্ছে।

বৃত্তাকার অর্থনীতি- বৈদ্যুতিক গাড়ি
বৈদ্যুতিক গাড়ি

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে 2020 সালে গৃহীত পরিকল্পনায় অন্যতম উচ্চাভিলাষী সবুজ পরিকল্পনা রয়েছে, জার্মানির লক্ষ ইউরোপকে পৃথিবীর প্রথম জলবায়ু নিরপেক্ষ (Climate Neutral) মহাদেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা।

5. বৃত্তের বর্গ?

এখনো অনেক দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হবে এবং প্রতিনিয়ত বিশ্ব চেয়ে পিছিয়ে যাচ্ছে তার প্রমাণও আছে।  Circularity Gap Report 2021 অনুসারে, সমগ্র বিশ্বে ব্যবহৃত পণ্যের মাত্র 8.6 শতাংশ পণ্য রিসাইকেল করা হয়েছে, যা 2018 সালের তুলনায় 9.1% কম। 

তাহলে কিভাবে বিশ্বকে Circular Economy-র আওতায় আনা যাবে? কোন সহজ উত্তর নেই, এমনকি কোন জাদুর কাঠিও নেই। কিন্তু Ms. Algeyorova আশাবাদ প্রকাশ করেন। 

” অটোমোটিভ সেক্টরের জন্য আমি গর্বিত, 2013 সালের UNECE(United Nations Economic Commission for Europe) এর রেগুলেশন অনুযায়ী একটি নতুন যানবাহনের 85% অংশ পুনর্ব্যবহারযোগ্য থাকতে হবে। বাধ্যতামূলক এই রেগুলেশন বিশ্বব্যাপী বিক্রি হওয়া এক চতুর্থাংশ যানবাহনের নকশা কে প্রভাবিত করে, ২০১৯ সালের যার সংখ্যা প্রায় ২৩ মিলিয়ন।”

” এটা একটি সঠিক পদক্ষেপ, কিন্তু এই ধরনের পদ্ধতির বিশ্বজুড়ে সকল সেক্টরে ব্যাপক আকারে ত্বরান্বিত করা উচিত।” তিনি আরো বলেন, “বৃত্তাকার অর্থনীতিতে প্রতিস্থাপন হওয়া ব্যবসায়ী , নাগরিক ও প্রকৃতির জন্য মঙ্গল বয়ে আনে এবং টেকসই অর্থনীতি বৈশ্বিক টেকসই অর্থনীতি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে এটি মূল কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হতে পারে।”

তথ্য সুত্রঃ জাতিসংঘ
অনুবাদঃ Ahnaf Labib
আরো পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *