স্বাস্থ্য

মেথির উপকারিতা ও অপকারিতা

5/5 - (26 votes)

মেথির উপকারিতা ও অপকারিতা জানতে চান? তাহলে এই পোস্ট আপনার জন্য। আপনি নিশ্চয়ই মেথি সম্পর্কে জানেন। একে মেথিকাও বলা হয়। মেথি প্রতিটি বাড়িতে ব্যবহৃত হয়। মানুষ মেথি পাতার শাক খুব পছন্দ করে। মেথির চাটনি অনেকেই পছন্দ করেন। মেথি বীজ সাবান এবং প্রসাধনী তৈরি করতে ব্যবহৃত হয়। এছাড়া মেথির অনেক উপকারিতা রয়েছে। আপনি কি জানেন যে মেথি একটি ওষুধ হিসাবেও ব্যবহার করা হয়, এবং মেথি থেকে উপকারী রোগের চিকিৎসা করা হয়?

Contents

মেথির দানার উপকারিতা

আয়ুর্বেদে বলা হয়েছে যে মেথি অনেক রোগের ওষুধ। এর বীজ মসলার পাশাপাশি ওষুধ হিসেবেও ব্যবহৃত হয়। মেথির লাড্ডু বিশেষভাবে গ্রামে গর্ভবতী মহিলাদের দেওয়া হয়। মেথি এবং মেথির তেলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে এবং গিঁট গঠন প্রতিরোধ করার বৈশিষ্ট্য রয়েছে। আসুন জেনে নিই কিভাবে মেথির উপকারিতা নিতে পারেন।

মেথি কি?

মেথি গাছ বছরে একবার জন্মায়। গাছের উচ্চতা প্রায় 2-3 ফুট লম্বা। গাছে ছোট ছোট ফুল ফোটে। এর শুঁটি মুগ ডালের মতো। এর বীজ খুবই ছোট। এটি স্বাদে তেতো।মেথির পাতা হালকা সবুজ এবং ফুলের রং সাদা। এর শুঁটিগুলিতে 10 থেকে 20টি ছোট, হলুদ-বাদামী বীজ থাকে এবং তীব্র গন্ধ থাকে। এই বীজ অনেক রোগে ব্যবহৃত হয়। এর আরেকটি প্রজাতি আছে, যার নাম ভ্যান মেথি। এটি নিম্নমানের। এটি পশু খাদ্য হিসাবে ব্যবহৃত হয়।

মেথির উপকারিতা ও অপকারিতা

মেথির ঔষধি গুণাগুণ চুল পড়া রোধে উপকারী

চুল পড়া বন্ধ করতে পারে মেথি। এর জন্য ১-২ চামচ মেথি দানা সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে পিষে চুলের গোড়ায় লাগান। এক ঘণ্টা পর চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার লাগালে চুল পড়া বন্ধ হয় (মেথি দানা চুলের জন্য উপকারী)।

আরও পড়ুন: চুল পড়া বন্ধের ঘরোয়া উপায়, চুল পড়া বন্ধ ও ঘন করার উপায়

সর্দি ও কানের চিকিৎসায় মেথিকা বীজের উপকারিতা

কানের স্রাব রোগে মেথির উপকারিতা নেওয়া যেতে পারে। দুধে মেথি দানা পিষে নিন। এটি ফিল্টার করুন এবং এটি প্রস্তুত করুন। এই রসটি উষ্ণ বা হালকা গরম করে কানে ১-২ ফোঁটা দিন। এতে কানের রক্ত ​​পড়া বন্ধ হয়।

হৃদরোগে মেথি খাওয়ার উপকারিতা

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যের কারণে মেথি হৃদরোগের জন্য উপকারী। এটি সঠিক রক্ত ​​সঞ্চালন বজায় রাখে। মেথিতে রয়েছে দ্রবণীয় ফাইবার যা হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। হৃদপিণ্ডকে সুস্থ রাখতে 10-15 মিলি মেথির ক্বাথ মধুর সঙ্গে মিশিয়ে পান করুন।
মেথির বীজ খারাপ কোলেস্টেরলও কমায়। প্রতিদিন গুঁড়ো মেথির বীজ খেলে খারাপ কোলেস্টেরল কমে।

পেটের রোগে মেথি খাওয়ার উপকারিতা

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে মেথির বীজ খুবই উপকারী। প্রতিদিন মেথি, চন্দ্রসুর, মাঙ্গারেলা (কালঞ্জি) এবং আজওয়াইন খান। এটি গ্যাস, ডিসপেপসিয়া, পেটের ব্যথা, ক্ষুধামন্দা, পেট ফাঁপা, পেট ব্যথা এবং কোমর ব্যথা সংক্রান্ত রোগে উপকারী।

পেটের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে মেথির উপকারিতা

কোষ্ঠকাঠিন্যের সঙ্গে লড়াইয়ে মেথি উপকারী

মেথির ঔষধিগুণ কোষ্ঠকাঠিন্যে উপকারী। কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থাকলে মেথি পাতার শাক বানিয়ে খান। এটি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে মুক্তি দেয়। মেথি মলকে নরম করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করে।

বমি বন্ধ করতে মেথির ঔষধি গুণাবলী

মেথির ঔষধিগুণ বমির সমস্যায় উপকারী। আপনি যদি ঘন ঘন বমিতে বিরক্ত হন তবে মেথি বীজের গুঁড়ো খান। এতে বমি হওয়া বন্ধ হয়। প্রতিকার গ্রহণ করার আগে একটি আয়ুর্বেদিক ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

মেথির ঔষধিগুণ রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণে উপকারী

ডায়াবেটিসে মেথির উপকারিতাও নিতে পারেন। নিয়মিত মেথি খেলে রক্তে চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে।
এক চা চামচ মেথি বীজের গুঁড়া তৈরি করুন। এটি প্রতিদিন সকালে খালি পেটে হালকা গরম পানির সাথে খান।
প্রতিদিন জলে মেথির বীজ ভিজিয়ে রাখুন। সকালে চিবিয়ে খান। উপর থেকে মেথি বীজের জল পান করুন।

আমাশয় বন্ধ করতে মেথিকা বীজের উপকারিতা

আমাশয়ের চিকিৎসায় মেথি ব্যবহার করা যেতে পারে। এজন্য ৫ গ্রাম মেথি দানা ঘিতে ভেজে নিন। এটি খাওয়া ডায়রিয়ায় উপকারী।
মেথি ভুনা করে একটি ক্বাথ তৈরি করুন। আমাশয় রোগে 15-20 মিলিলিটার ক্বাথ সেবনে উপকার পাওয়া যায়।
দীর্ঘদিন ধরে ডায়রিয়ায় ভুগলে 1-2 গ্রাম মেথির গুঁড়া বাটার মিল্কের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়।

গর্ভাবস্থার পরে মহিলাদের জন্য মেথি উপকারী

মহিলারা সন্তান প্রসবের পর মেথির ঔষধিগুণ থেকে অনেক উপকার পান। মেথি বীজ গর্ভবতী মহিলাদের স্তনে দুধ বাড়ায়। মেথি খাওয়া মায়ের দুধের গুণমানও বাড়ায়, যা শিশুর স্বাস্থ্যেরও উন্নতি করে। মায়েরা মেথি শাক, স্যুপ ইত্যাদি খেতে পারেন।
গুড়, দুধ ও গরুর ঘি মিশিয়ে জিরা, মৌরি, সয়া, মেথি ইত্যাদি রান্না করুন। এটি পান করুন। যোনি, জ্বর, যক্ষ্মা, কাশি, শ্বাসকষ্ট, রক্তশূন্যতা, পাতলা হওয়া ইত্যাদি রোগে উপকারী।
গ্যাস গঠন ও গ্যাসজনিত রোগেও মেথি খাওয়া উপকারী।
মেথি দানা সারারাত ভিজিয়ে রেখে সকালে খেতে হয়।

ঋতুস্রাবের সমস্যায় মেথির উপকারিতা

বর্তমানে বিপুল সংখ্যক নারী ঋতুস্রাব সংক্রান্ত সমস্যায় ভুগছেন। মহিলাদের পেটে ব্যথা, মাসিকের সময় অতিরিক্ত রক্তপাতের মতো সমস্যা শুরু হয়। ঋতুস্রাবের প্রক্রিয়া ইস্ট্রোজেন নামক হরমোন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। মেথি বীজে ইস্ট্রোজেন গুণ রয়েছে, তাই এটি ঋতুস্রাব সংক্রান্ত সমস্যায় উপকারী। মেথি খেলে রক্তও তৈরি হয় এবং ব্যথাও কম হয়। মাসিকের সমস্যা দূর করতে 1-2 গ্রাম মেথি বীজ খান।
এছাড়াও আপনি মেথি বীজ থেকে তৈরি চা পান করতে পারেন। মেথির চা মিষ্টি বানিয়ে একটু ঠান্ডা হতে দিন। এতে মধু যোগ করুন। বেশি লাভ হবে।

গনোরিয়া চিকিৎসার জন্য মেথিকার উপকারিতা

1-2 গ্রাম মেথির গুড়া গুড়ের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে গনোরিয়ায় উপকার পাওয়া যায়। প্রতিকার গ্রহণ করার আগে একটি আয়ুর্বেদিক ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করতে ভুলবেন না।

ক্ষত নিরাময়ের জন্য মেথিকার উপকারিতা

মেথির ঔষধি গুণ ক্ষতস্থানে উপকারী। ক্ষতস্থানে যদি ফুলে যায়, জ্বালাপোড়াও হয়, তাহলে মেথি পাতা পিষে ক্ষতস্থানে লাগান। এর ফলে ক্ষতস্থানের ফোলা ও জ্বালা-পোড়া উভয়ই সেরে যায়।
মেথি বীজ পিষে বন্ধ মুখের ঘাগুলিতে মেথি বীজ লাগান।

লিভারের জন্য মেথিকার উপকারিতা

একটি গবেষণা অনুসারে, মেথিতে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং হেপাটো-প্রতিরক্ষামূলক বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এটি লিভারের জন্যও উপকারী।

স্নায়বিক ব্যাধি নিরাময়ে মেথিকার উপকারিতা

1-2 গ্রাম মেথি বীজের গুঁড়া নিন। এটি স্নায়ুতন্ত্রের রোগে উপকারী। এর ব্যবহারে ধীরে ধীরে স্নায়ুতন্ত্রের সমস্যা ভালো হতে শুরু করে।

শরীরের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে মেথির উপকারিতা

মেথির বীজে ব্যথা উপশমকারী গুণ রয়েছে। 1-2 গ্রাম মেথি গুঁড়ো খেলে সারা শরীরের ব্যথা দূর হয়।

চর্মরোগের জন্য মেথিকা উপকারি

মেথির উপকারিতা দিয়ে আপনি চর্মরোগেরও চিকিৎসা করতে পারেন। মেথির পেস্ট তৈরি করুন। হার্পিস-চুলকানি-চুলকানি বা একজিমার মতো চর্মরোগে এটি প্রয়োগ করুন। এটি সুবিধা দেয়।

প্রদাহ কমাতে মেথিকা উপকারি

মেথিতেও প্রদাহরোধী গুণ রয়েছে। মেথি পাতা ও বীজ পিষে নিলে যে কোনো ধরনের ফোলাভাব হলে আরাম পাওয়া যায়।
মেথি বীজ এবং বার্লি ময়দা ভিনেগার দিয়ে পিষে নিন। গালে ফোলা ভাব থাকলে গালে পাতলা পেস্ট লাগান। এটি ফোলা কমায়।

মেথি আর্থ্রাইটিসের চিকিৎসায় একটি আয়ুর্বেদিক ওষুধ

বাতের ব্যথায়ও মেথি উপকারী। আসলে গাউট বাত দোষের কারণে হয়। মেথিতে বাতের ভারসাম্য বজায় রাখার গুণ রয়েছে। এটি বাতের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। আর্থ্রাইটিসে মেথির ব্যবহার সম্পর্কে আপনার একজন আয়ুর্বেদিক ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত।

হজমের ব্যাধির জন্য মেথিকার উপকারিতা

মেথিতে গরম ও হালকা গুণ রয়েছে। এ কারণে এটি হজমের আগুন বাড়িয়ে হজম প্রক্রিয়াকে শক্তিশালী রাখে। এটি ক্ষুধা বাড়াতেও সাহায্য করে।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে স্থিতিশীল রক্তচাপ রাখতে মেথির উপকারিতা
রক্তচাপের সমস্যা থাকলে মেথি খেলে উপকার পেতে পারেন। মেথিতে রয়েছে অ্যান্টি-হাইপারটেনসিভ গুণ যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।

উচ্চ্ রক্তচাপ

মেথিকার দরকারী অংশ
আপনি মেথি গাছের এই অংশগুলি ব্যবহার করতে পারেন:-

পাতা

বীজ

মেথি কিভাবে ব্যবহার করবেন?
মেথি বীজের ক্বাথ – 10-20 মিলি
মেথি বীজ গুঁড়া – 1-2 গ্রাম
সর্বাধিক উপকারের জন্য, আয়ুর্বেদিক ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী মেথি ব্যবহার করুন।

মেথির অপকারিতা

মেথিও ক্ষতি করতে পারে:-

বমি
ডায়রিয়া
ডায়াবেটিসের ওষুধের সাথে সাবধানে ব্যবহার করুন। এটি চিনির মাত্রা কমাতে পারে।
মেথি কোথায় পাওয়া যায় বা জন্মে? (মেথি কোথায় পাওয়া যায় বা জন্মায়?)
বাংলাদেশ এবং ভারতের সব রাজ্যেই মেথি চাষ হয়। মেথি প্রধানত উচ্চ গাঙ্গেয় সমভূমিতে এবং কাশ্মীর ও পাঞ্জাবে চাষ করা হয়। এটি বিশেষ করে ভূমধ্যসাগর, দক্ষিণ ইউরোপ এবং পশ্চিম এশিয়ায় চাষ করা হয়। সুগন্ধি বীজের কারণে এটি চীনে চাষ করা হয়। এটি আফ্রিকায় পশু খাদ্যের জন্য চাষ করা হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button