ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে শিখব

ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে শিখব এই সম্পর্কে যারা আমাদের কাছে জানতে চেয়েছেন তাদের জন্য এই পোস্টে একটি পরিপূর্ণ গাইডলাইন দিব। নতুনরা এই গাইডলাইন ফলো করে এক্সপার্ট ডিজিটাল মার্কেটার হতে পারবেন। আমি মূলত আপনাকে ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায় সম্পর্কে কমপ্লিট গাইডলাইন দিব। আপনার ক্যারিয়ার গড়তে আজকের এই পোস্ট আপনাকে অনেক বেশি হেল্প করবে।

ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে যদি আপনার ধারণা খুবই কম থাকে বা মোটামুটি থাকে তাহলে আমার আগের পোস্ট থেকে পরিপূর্ণ ধারণা নিয়ে আসুন। কেননা এই বিষয় সম্পর্কে আপনি যদি ভালোভাবে না জানেন তাহলে কখনো আপনি এটি শিখতে পারবেন না।

আমরা যারা ডিজিটাল মার্কেটার হতে চাই তাদের সবারই প্রশ্ন থাকে যে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখব কিভাবে। আজকে আমি আপনাদের সাথে ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে আপনারা শিখবেন সেই বিষয়ে ধাপে ধাপে বিস্তারিত আলোচনা করব। সম্পূর্ণ বিষয়টি জানতে হলে অবশ্যই আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাকে মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে। তাহলে চলুন দেরী না করে জেনে নেওয়া যাক ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে শিখব?

ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে শিখব

ডিজিটাল মার্কেটিং হল সার্চ ইঞ্জিন বা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম যেখানে সাধারণত এক বা একাধিক মার্কেটিং চ্যানেল ব্যবহার করে ইন্টারনেটে পণ্য বা পরিষেবাদি প্রচার বা বিক্রি করা হয় এর মাধ্যমে।

আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার ব্র্যান্ডের জন্য আকর্ষণীয় ক্রেতাদের সন্ধান করতে পারবেন। তাদের সাথে আপনি এর মাধ্যমে আলাপ করতে পারবেন এবং আপনার পণ্যের গ্রাহক হওয়ার আগে পর্যন্ত তাদের সাথে আপনি যোগাযোগ রেখে যেতে পারবেন। 

বর্তমানে সবচেয়ে প্রচলিত এবং জনপ্রিয় ডিজিটাল মার্কেটিং এর উদাহরণ হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং, কনটেন্ট মার্কেটিং, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এবং ইমেইল মার্কেটিং। এগুলোই হল বর্তমানে সবচেয়ে প্রচলিত ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যম। এই সকল বিষয় গুলো আপনাকে ধাপে ধাপে শিখতে হবে।

বর্তমান বিশ্বের নামিদামি সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানই তাদের ব্যবসার পরিধি বাড়ানোর জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং কে ব্যবহার করে চলেছে। সাধারণত একমুখী বিজ্ঞাপনের আদিম পদ্ধতি বর্তমানে আর কাজ করে না। বর্তমানে আপনি যে ব্যবসা ই শুরু করুন না কেন আপনার ব্যবসাকে যদি উন্নতির চরম পর্যায়ে নিয়ে যেতে হয় তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর শরণাপন্ন আপনার হওয়াই লাগবে। 

আপনি যদি মনে করেন যে আপনার ব্যবসাকে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে প্রচার বা প্রসার করবেন না তাহলে এটি হতে পারে আপনার ব্যবসার জন্য মারাত্মক একটি ভুল। যাইহোক বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিং এর গুরুত্ব যারা ব্যবসা করে থাকেন অনলাইনে, তারা জানেন। ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে তারা তাদের ব্যবসাকে অনেক সহজতর করে ফেলেছে এবং এর মাধ্যমে তারা কাঙ্খিত ক্রেতাও পাচ্ছেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক  ঘরে বসে কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখবেন-

ঘরে বসে কিভাবে শিখবেন ডিজিটাল মার্কেটিং?

আপনাকে যদি একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটার হতে হয় তাহলে আপনাকে অনলাইন ভিত্তিক সকল প্রযুক্তির সাথে কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন করতে হবে। আপনি যদি এই ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকেন এবং জানেন যে এই প্লাটফর্ম গুলো কিভাবে ব্যবহার করা উচিত তাহলে কিন্তু আপনার কাজটা অনেক সহজ হয়ে গেল এর মাধ্যমে। 

আপনার ভেতর যদি কঠোর পরিশ্রম এবং ধৈর্য থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং কে নিজের আয়ত্তে আনতে পারবেন। তাছাড়া ডিজিটাল মার্কেটিং এর আরেকটি সুবিধা রয়েছে সেটি হলো আপনাকে ডিজিটাল মার্কেটিং এ দক্ষ হওয়ার জন্য কোন প্রতিষ্ঠানে কোর্স করতে হবে না।

ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে হলে আপনার মাঝে যে জিনিসটি সবার আগে থাকা প্রয়োজন, তা হলো প্রচুর পরিমাণে ব্লগ পড়া। প্রতিনিয়ত আপনাকে গুগলে সার্চ করতে হবে। ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে মার্কেটিং এর নিত্য নতুন আপডেট সম্পর্কে জানতে হবে। আপনি গুগলে সার্চ করতে পারলে এই বিষয়ে পর্যাপ্ত ইনফরমেশন পেয়ে যাবেন খুব সহজেই, যেগুলো আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং শিখার জন্য যথেষ্ট।

এজন্য আপনি মার্কেটিং রিলেটেড কিছু ব্লগ নিয়মিত ফলো করতে পারেন। এখুনি সার্চ করে বের করে ফেলুন বিশ্বের সেরা কয়েকজন ডিজিটাল মার্কেটার দের। যার কথা না বললেই নয়, ডিজিটাল মার্কেটিং এ সফল হতে হলে নেইল প্যাটেল, যিনি বিশ্বের সেরা ডিজিটাল মার্কেটার, তাকে আপনার অবশ্যই ফলো করতে হবে। তাছাড়া বাংলাদেশের বেশ কয়েকজন ভালো মানের মার্কেটার আছেন যারা নিয়মিত রিসোর্স শেয়ার করে থাকেন সম্পুর্ণ বাংলায়, আপনি তাদের অবশ্যই ফলো করুন।

তবে হ্যাঁ, কিছু বিষয়ে আপনি যথেষ্ট সতর্ক না হলে ভুল পথে ধাবিত হবেন। যা আপনার মূল্যবান সময় এবং স্বপ্ন নষ্ট করে দিতে পারে। কে আপনাকে সঠিক গাইডলাইন দিচ্ছে আর কে ভুল গাইডলাইন দিচ্ছে এতটুকু বুঝার মত দক্ষতা আপনার থাকতে হবে। তাই আপনি নোটখাতার গাইডলাইন ফলো করে যান, তাহলে অন্তত এইটুকু দক্ষতা অর্জন করতে পারবেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার জন্য করনীয় ৫ টি কাজ 

আপনাকে যদি ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে হয় তাহলে অবশ্যই এই পাঁচটি বিষয় সম্পর্কে আপনার ভালো ধারণা থাকতে হবে। তা না হলে আপনি কোন সময়ই ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে পারবেন না। 

  1. সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং ( SEM & PPC) এবং সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন
  2. কনটেন্ট মার্কেটিং 
  3. সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এবং এডভার্টাইজিং
  4. ইমেইল মার্কেটিং 
  5. ডিজিটাল মার্কেটিং এনালাইটিকস টুলস

১.সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিংকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রধান উপাদান বলা হয়ে থাকে। ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে সার্চ ইঞ্জিন মারকেটিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বিভিন্ন ধরনের সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজ এসইও করে এখানে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং করা হয়ে থাকে।

আর সাধারনত এই ক্ষেত্রে গুগল এড বা বিং এডকে ব্যবহার করে সার্চ ইঞ্জিন এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপন পরিচালনা করা হয়ে থাকে। যাদের সাধারণত ওয়েবসাইট রয়েছে তারা জানেন এসইওর গুরুত্ব কতটা। এসইও হচ্ছে নিজের ওয়েব সাইটের কনটেন্ট বা কোন প্রোডাক্ট রিভিউ গুগলের মাধ্যমে র্যাংক করানো।

আর এর ফলে ভিজিটর গুগলে আপনার পণ্য সম্পর্কে কিছু সার্চ করলেই সবার উপরে আপনার পণ্যের বিজ্ঞাপন এবং রিভিউ টি দেখাবে। অনলাইন মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে এসইও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা এর মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটে টার্গেট করা ট্রাফিক  বা ভিজিটর খুব সহজেই এনে দিতে পারে। 

সার্চ ইঞ্জিনে এড রান করার জন্য আপনাকে কিওয়ার্ড রিসার্চ খুব ভালোভাবে জানতে হবে। কোন কিওয়ার্ডের সিপিসি কত এবং কোন কিওয়ার্ড টার্গেট করলে আপনার ওয়েবসাইটে সবচেয়ে কম খরচে অনেক বেশি ট্রাফিক আনতে পারবেন এই বিষয়টি আপনাকে খুব ভালোভাবে শিখতে হবে। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো আপনার ক্যাম্পেইন এর কস্ট কিভাবে অপটিমাইজ করা যায় এটি আপনাকে শিখতে হবে।

কিওয়ার্ড টার্গেট করার জন্য আপনাকে গুগল এনালিটিক্স এবং সার্চ কনসোল এর ডাটা এনালাইসিস করা শিখতে হবে। এরপরে পিপিসি সম্পর্কে আপনাকে খুব ভালোভাবে জানতে হবে। সার্চ এড এর পাশাপাশি যে জিনিস টা সবচেয়ে বেশি কার্যকরি তা হলো ডিসপ্লে এড। তাহলে আপনি এখুনি গুগলে সার্চ করে এগুলো শিখে ফেলুন।

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বা অর্গানিক এসইও, যার উপর বিজনেস ওনার দের সবচেয়ে বেশি আগ্রহ থাকে, এটি আপনাকে শিখতে হবে। কেননা অর্গানিক এসইও এর মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে কোন টাকা পয়সা খরচ না করে নিয়মিত টার্গেটেড ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারবেন। এটিকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবচেয়ে বড় ইন্ডাস্ট্রি ধরা হয়। এসইও বাংলা টিউটোরিয়াল পোস্ট থেকে আপনি এসইও শিখে নিতে পারবেন।

২.কনটেন্ট মার্কেটিং 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো কনটেন্ট মার্কেটিং। সাধারণত প্রতিটা ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রচার এর বিষয়বস্তু কনটেন্ট এর উপর নির্ভর করে থাকে। আপনি যার মাধ্যমেই মার্কেটিং করুন না কেন সেটা হোক ইমেইল মার্কেটিং সেটা হোক সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং অথবা এসইও যার মাধ্যমে করুন না কেন অবশ্যই আপনার কনটেন্ট এর দরকার হবে। 

কনটেন্ট মারকেটিং বলা হয়ে থাকে মূলত লিখে অথবা ভিডিও এনিমেশন তৈরি করে পণ্যের প্রচার করা। একজন কনটেন্ট মার্কেটার তার পণ্যের জন্য আর্টিকেল লিখে খুবই ভালভাবে এর প্রচার করতে পারেন। তাছাড়া সে যদি মনে করে এর ওপর একটি ভিডিওচিত্র সে তৈরি করেও এর প্রসার করতে পারেন সেটাও কিন্তু কনটেন্ট মার্কেটিং এর একটি অংশ। 

আর সাধারনত একজন ভাল কনটেন্ট মার্কেটার হতে হলে আপনার অবশ্যই দুর্দান্ত লেখার দক্ষতা এবং এসইও কপিরাইট দক্ষতা আরো বিশেষ দক্ষতা সম্পন্ন হতে হবে তাহলেই আপনি একজন ভাল কনটেন্ট মার্কেটার হতে পারবেন। 

৩.সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং 

বর্তমান বিশ্বে যে সোশ্যাল মিডিয়ার কত জনপ্রিয়তা তা আমরা সবাই জানি। বর্তমানে আমরা অনেকেই ইউটিউব, ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম এর মত আরো অনেক সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে থাকে। বিশ্বজুড়ে প্রতিষ্ঠিত এসব সোশ্যাল মিডিয়ার নেটওয়ার্কগুলো আমাদের জীবনে এবং ডিজিটাল মার্কেটিং এ আমাদের দৃষ্টিভঙ্গির উপর বিশেষ প্রভাব বিস্তার করে চলেছে। 

কেননা ডিজিটাল মার্কেটিং এর লক্ষ্য হচ্ছে অনলাইনের মাধ্যমে ক্রেতাদের বিভিন্ন ভাবে আকৃষ্ট করা। তাই সাধারণত সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম এবং গুরুত্বপূর্ণ একটি শাখা হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। 

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে অনলাইনের মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছে কোন পণ্যের প্রচার বা প্রসার করাকেই সাধারণত বলা হয়ে থাকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। আমরা বর্তমানে সময় কাটানোর বা বন্ধু-বান্ধবের সাথে আড্ডা দেয়ার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলো ব্যবহার করে থাকি। 

ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং হচ্ছে সবথেকে জনপ্রিয় একটি উপায় এবং এর মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই লাখ লাখ কাস্টমার পেয়ে যাবেন আপনার ব্যবসার জন্য। তাই আপনাকে যদি একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটার হতে হয় তাহলে অবশ্যই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে আপনার ভালো জ্ঞান থাকতে হবে। 

কেননা বিশ্বে এখন লাখ-লাখ কোটি-কোটি মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলো ব্যবহার করে থাকেন। তাই অবশ্যই একজন ডিজিটাল মার্কেটার হওয়ার আগে এই বিষয়গুলো সম্বন্ধে আপনার পর্যাপ্ত ধারণা থাকতে হবে। 

৪.ইমেইল মার্কেটিং 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান গুলোর মধ্যে এটি একটি। ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনি মুহূর্তেই লাখ লাখ ইউজারের কাছে আপনি আপনার পণ্যের বিশদ সম্পর্কে জানাতে পারবেন। 

বর্তমান সময়ে গ্রাহকদের আকৃষ্ট করা এবং প্রোডাক্ট সম্পর্কে সচেতন করার জন্য ইমেইল মার্কেটিং খুবই কার্যকরী একটি উপায়। তবে আপনাকে যদি একজন ইমেইল মার্কেটার হতে হয় তাহলে অবশ্যই এর জন্য কিছু দুর্দান্ত কৌশল জানতে হবে। আর সেগুলি যদি না জানেন  আপনার করা ইমেইল গুলো আপনার ব্যবহারকারী ইউজারদের স্প্যাম ফোল্ডারে গিয়ে জমা হবে কোন কাজের কাজ হবে না। 

ইমেইল মার্কেটিং করার আগে অবশ্যই আপনাকে টুলস ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিতে হবে এবং এগুলো কিভাবে ব্যবহার করে সেটাও আপনাকে জানতে হবে। এই বিষয়টি যদি আপনি শিখে যান তাহলে অবশ্যই আপনি ইমেইল মার্কেটিং করতে পারবেন। 

৫.ডিজিটাল মার্কেটিং এনালাইটিকস টুল 

একজন ভাল মানের ডিজিটাল মার্কেটার হতে হলে আপনাকে অবশ্যই বিভিন্ন মার্কেটিংয়ের এনালাইটিক্স টুল সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে।

আপনাকে অবশ্যই এই বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে যে একজন সুদক্ষ ডিজিটাল মার্কেটার এর কাজ শুধু সোশ্যাল মিডিয়া বা অন্যান্য জায়গায় প্রচার চালানো এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। এটি সাধারণত এসইও বিশেষজ্ঞ এর মিডিয়া মার্কেটিং ব্যবস্থাপকের কাজ। 

সুতরাং আপনি বুঝতেই পারছেন একজন পেশাদার ডিজিটাল মার্কেটারের কাজ হচ্ছে ক্রেতার অবস্থান পছন্দ ও আগ্রহ বুঝে নির্দিষ্ট পণ্যের টার্গেট নির্ধারণ করা। যা সাধারণত বিভিন্ন ধরনের এনালাইটিক্স টুলের মাধ্যমে করা সম্ভব। 

আর এই বিষয়টি যদি আপনার আয়ত্তে আনতে হয় তাহলে আপনাকে গুগল এনালাইটিক্স এবং গুগল সার্চ কনসোলের মতো টুলগুলো কিভাবে ব্যবহার করতে হয় সেটি আগে শিখতে হবে। যেটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, ROI বা রিটার্ন ওঁ ইনভেস্টমেন্ট, এটি ক্যাল্কুলেশনে আপনাকে খুবই দক্ষ হতে হবে।

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায়

আমি জানি এতক্ষণ পুরো পোস্ট পড়ার পরেও আপনাদের মনে একটি প্রশ্ন উঁকিঝুঁকি মারছে। কোথায় এবং কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা শুরু করব। চলুন তাহলে এবার আমরা প্র্যাকটিক্যালি ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা শুরু করি।

এতক্ষণ যেসব গাইডলাইন পেলেন সবকিছু শিখতে আপনি গোগলের একটি ফ্রি কোর্স করে ফেলুন। google digital garage লিখে সার্চ করুন। লিঙ্ক নিচে দেয়া হল,

https://learndigital.withgoogle.com/digitalgarage

এই কোর্স টি কমপ্লিট করলে আপনি একটি সার্টিফিকেট পাবেন, যা আপনার ক্যারিয়ার গড়তে খুবই কাজে দিবে। তবে কখনো এটা ভাববেন না যে, এই কোর্স করেই আপনি পুরো ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে যাবেন। এখান থেকে আপনি ব্যাসিক বিষয় গুলো ভালোভাবে শিখবেন, যা আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার পরবর্তি ধাপ গুলো সহজ করে দিবে।

আমাদের শেষ কথা 

আমাদের আর্টিকেলটির যারা মনোযোগ সহকারে পড়েছেন তারা অবশ্যই বুঝতে পেরেছেন যে ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা কতটা কঠিন কাজ না। প্রতিটি কৌশল যদি আপনি আলাদা আলাদা করে শিখে আয়ত্তে আনতে পারেন তাহলে আপনি খুব সহজেই একজন ভালো ডিজিটাল মার্কেটার হয়ে যাবেন। এর পরবর্তি পোস্টে আপনাদের জন্য থাকবে ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার গাইডলাইন।

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা শুরু করতে হলে আপনাকে তেমন কোনো টাকা খরচ করতে হবে না। আপনি যদি এসব বিষয়গুলো সম্পর্কে একটু অনলাইনের মাধ্যমে ধারণা নিতে পারেন এবং সেই অনুযায়ী কাজ করে যেতে পারেন তাহলে আপনি খুব সহজেই একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটার হতে পারেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *