স্কিন কেয়ার

স্থায়ীভাবে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির উপায়

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির উপায়: জন্মগতভাবে আমাদের সকলের গায়ের রং কিন্তু ফর্সা নয়। আমাদের অনেকের গায়ের রং ফর্সা, শ্যামলা, উজ্জ্বল শ্যামলা কিংবা কালো এক এক রকমের। একজন যেমন নিজের গায়ের ফর্সা রং নিয়ে গর্ববোধ করে তেমনি অন্যজন আবার নিজের গায়ের শ্যামলা বা কালো রঙ নিয়ে মন খারাপ ও করে।

ফর্সা হওয়ার জন্য মানুষের যেন এক অদম্য প্রচেষ্টা আর তাইতো মানুষ প্রতিনিয়ত ফর্সা হওয়ার বিভিন্ন ক্রিম, লোশন কিংবা ইনজেকশনও ব্যবহার করে থাকে। যাদের আবার একটু আর্থিক অবস্থা ভালো তারা দারস্থ হয় প্লাস্টিক সার্জারির। তাছাড়াও একটা কমন সমস্যা সকলেই মুখোমুখি হয় তা হলো ধূলাবালি কিংবা ময়লার কারনে মুখের ত্বক রং কালো হয়ে যাওয়া।

যেকোন জিনিসকে ভালো রাখতে হলে যেমন যত্নের বিকল্প নেই তেমনি ত্বকের রং ফর্সা করতে হলে নিতে হবে ত্বকের যত্ন। অন্যথায় গায়ের ত্বকের আসল রঙ হারিয়ে যাবে। ফর্সা হওয়ার জন্য ব্যবহৃত বিভিন্ন ক্রিম কিংবা লোশনে ক্যামিকেল কিংবা অন্য ক্ষতিকর বস্তুর উপস্থিত থাকার কারনে তা ব্যবহার করে ত্বকের সৌন্দর্য যেমন নষ্ট হয় তেমনি ত্বকে বিভিন্ন সমস্যা সৃষ্টিও হয়।

তবে আমরা চাইলেই ত্বক ফর্সাকারী এধরনের ক্রিম কিংবা লোশনে এর পরির্বতে হোম মেইড ফেইস প্যাক ব্যবহার করতে পারি ত্বক ফর্সা করার জন্য। হোম মেইড ফেইস প্যাক এর মাধ্যমে আপনারা ঘরে বসে ত্বকের যত্ন নিতে পারেন যা আপনাদের সময় ও টাকা দু’টিই বাঁচাবে। আমাদের আজকের আর্টিকেল এ আমরা জেনে নিব কিছু হোম মেইড ফেইস প্যাক তৈরীর পদ্ধতি যেগুলো আমাদের ত্বক উজ্জ্বল ও টান টান করার পাশাপাশি করে তুলবে ফর্সা। আসুন জেনে নেই ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির উপায় সম্পর্কে যেগুলো আমি নিজে ব্যবহার করি।

বেসন ও লেবু দিয়ে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির উপায়

বেসন ও লেবু দিয়ে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির উপায়
বেসন ও লেবু দিয়ে রূপচর্চা

বেসন ও লেবু এই উপকরণ দুটি আমাদের প্রত্যেকের বাসায় কম বেশি থাকে। লেবুতে থাকে ভিটামিন সি যা ত্বকের জন্যে অনেক উপকারী সাথে বেসন মুখের ট্যান দূর করে ত্বককে করে তুলে কোমল ও আর্কষণীয়। বেসন আর লেবু একসাথে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে ব্যবহার করুন। বেসন ও লেবুর ফেস প্যাকটি বানানোর জন্য আপনি নিচের পদ্ধতি মেনে চলুন।

একটি বাটিতে নিবেন ৪ চামচ বেসন, ৩চামচ লেবুর রস, ১ চামচ হলুদ গুঁড়া ও ১ চামচ গোলাপ জল তারপর সবকয়টি উপকরণ খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন এবং মিশ্রণ ব্রাশ কিংবা হাতের সাহায্যে সম্পূর্ণ মুখে লাগিয়ে, মিশ্রণটা মুখে রেখে দিন না শুকানো পর্যন্ত।

মিশ্রণটা শুকিয়ে গেলে হালকা গরম পানি দিয়ে মুখটা ধুয়ে নিতে হবে। তারপর আলতো করে মুখ মুছে নিতে হবে, তারপর আপনি চাইলে মুখে কোন ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন আবার নাও পারেন। বেসন ও লেবু দিয়ে তৈরিকৃত ফেস প্যাকটি আপনি সপ্তাহে দুদিন ব্যবহার করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা

টমোটো ও মধু দিয়ে রূপচর্চা

টমোটো ও মধু দিয়ে রূপচর্চা
টমোটো ও মধু দিয়ে রূপচর্চা

রূপচর্চায় টমেটো ও মধু খুবই জনপ্রিয় দুটি উপকরন তাই এটি রূপচর্চার ক্ষেত্রে বহুলভাবে ব্যবহৃত হয়। ত্বক ফর্সা কারার জন্য আপনি খুব সহজেই টমেটো আর মধু দিয়ে প্যাক বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। যাদের ত্বক রোদে পুরে অনেক বেশি কালো হয়ে যায় তারা তাদের মুখের এই রোদে পুরা কালো দাগগুলো সহজেই দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন টমেটো আর মধু দিয়ে তৈরী এই যাদুকরী হোম মেইড ফেস প্যাক। হোম মেইড এই ফেইসটি তৈরি করতে নিচের উপায়ে চেষ্টা করুন।

একটি ব্লেন্ডার কিংবা বাটিতে টমেটোকে ব্লেন্ড করে পেস্ট করে নিন তারপর এতে ৩ কিংবা ৪ চামচ মধু নিন তার সাথে এবার মধু মিশিয়ে ভালো করে প্যাক বানিয়ে ফেলুন। এই প্যাক মুখে মেখে ২০ মিনিটের মতো রেখে দিন। তারপর গরম পানিতে মুখ ভালোভাবে ধুয়ে নিন।

মুখ ধোয়ার পর দেখবেন যে আপনার মুখ সাথে সাথে তরতাজা ও পরিষ্কার লাগছে। টমেটো আপনার ত্বকের পোড়া দাগ দূর করতে সাহায্য করে। এই প্যাকটি নিয়মিত ব্যবহার করলে তা আপনার ত্বককে কড়া রোদের থেকে সুরক্ষিত রাখবে।

মধু ও লেবু দিয়ে রূপচর্চা

মধু ও লেবু দিয়ে রূপচর্চা

মধু এবং লেবুর রস ত্বককে পরিষ্কার আর টান টান করতে বিশেষ উপকারী। তাই আপনার ত্বককে ফর্সা করতে ব্যবহার করতে পারেন মধু আর লেবুর রস মিশিয়ে তৈরী করা একটি অসাধারণ ফেইস প্যাক।

এই হোম মেইড ফেইস প্যাকটি তৈরি করতে একটি বাটিতে ২ চামচ মধু ও ২ চামচ লেবুর রস নিয়ে উপকরনগুলো ভালোভাবে মিশিয়ে পুরো মুখে লাগিয়ে নিন। তারপর এই প্যাকটি শুকানোর জন্য মুখে ৩০ মিনিটের মতো রেখে দিন এবং এরপর হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।

লেবুর রস মুখের ত্বক পরিষ্কার ও ডিটক্সিফাই করতে সাহায্য করে এবং মধু খুব সুন্দর ভাবে মুখের ময়েশ্চার ধরে রাখতে সাহায্য করে। এই ফেইস প্যাকটি ত্বকে উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতেও কিন্তু খুব ভালো কাজ করে। তাই আপনি যদি সপ্তাহে তিন দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করেন তাহলে নিশ্চতভাবে আপনার এতে মুখের উজ্জলতা ফিরিয়ে নিয়ে আসবে আর আপনাকে করে তুলবে ফর্সা।

পেঁপে ও ডিম দিয়ে রূপচর্চা

পেঁপে ও ডিম দিয়ে রূপচর্চা
পেঁপে ও ডিম দিয়ে রূপচর্চা

আমাদের ত্বককে সুন্দর রাখতে পেঁপে আর ডিম দিয়ে বানানো ফেইস প্যাক দারুণ কাজ করে। আপনি যদি আপনার ত্বকের রং ফর্সা করতে চান তবে পেঁপে আর ডিমের তৈরি প্যাক তৈরী করে ব্যবহার করতে পারেন। পেঁপে আর ডিম একসাথে ব্যবহার করলে ত্বকের কালো ভাব হালকা হয়ে ত্বক আস্তে আস্তে ফর্সা হয়ে উঠবে। ডিমে রয়েছে প্রোটিন যা ত্বককে টানটান রাখতে সাহায্য করে। আপনি চাইলে পেঁপে ও ডিম এর এই প্যাকটির সাথে দই মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। দই ত্বকের ভিতর থেকে ত্বককে পরিষ্কার করে তা উজ্জ্বল করে তুলে।

এই হোম মেইড ফেইস প্যাকটি বানাতে ৩ চামচ পেপের রস, ২ চামচ দই, ৪ চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার, ৩ চামচ আমন্ড অয়েল, ১/২ চামচ গ্লিসারিন এবং একটি ডিমের সাদা অংশ, এই উপকরনগুলো নিন। এবার গ্লিসারিন আর ডিম ছাড়া বাকি সব উপাদান গুলোকে একটি বাটিতে নিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে তা ফ্রিজে ২ঘন্টার মতো রেখে দিন। তারপর এর সাথে গ্লিসারিন আর ডিমের সাদা অংশ দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে পেস্টটি মুখে লাগিয়ে নিন।

এরপর এই প্যাকটি শুকানোর জন্য মুখে ৩০ মিনিট এর মতো রেখে দিন। প্যাকটি শুকিয়ে গেলে হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে আলতো করে মুখ ধুয়ে নিন। এরপর একটি পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুখ মুছে নিয়ে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। এতেই আপনার ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল আর ফর্সা।

এছাড়াও আপনি আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি ও ত্বককে ফর্সা করতে হলুদ বাটা, মুলতানি মাটি কিংবা চন্দন এর প্যাকও ব্যবহার করতে পারেন। সপ্তাহে তিন দিন মুখে হলুদ বাটা আপনার ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল, ফর্সা ও লাবণ্যময়। হলুদ এ রয়েছে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান যা ত্বককে নানা ধরনে ব্যাকটেরিয়ার হাত থেকে রক্ষা করে যা ত্বককে কোনো রকম দাগ হতে দেয় না।

তাছাড়াও ত্বকের ময়লা দূর করতে ২ চামচ চিনি ও ২ চামচ মধু একসাথে মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরী করে আপনার স্ক্রাব করতে পারেন এতে করে আপনার ত্বকের ময়লা দূর হয়ে মুখ হয়ে উঠবে কোমল ও লাবণ্যময়। আপনি যদি উপরের দেখানো পদ্ধতিগুলো মাধ্যমে ফেইস প্যাক তৈরি করে নিয়মিত ব্যবহার করেন তাহলে কয়েকমাসেই আপনার ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল ও ফর্সা এবং এর সাথে সাথে বৃদ্ধি করবে আপনার ত্বকের জৌলুস। তাহলে আর দেরি না করে আপনার ত্বককে ফর্সা করে উপরের দেখানো পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করে হোম মেইড ফেইস প্যাক বানিয়ে আজই ব্যবহার করুন।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (17 votes)

Sabbiha Mithila

This is Sabbiha Hossain Methela, I am very passionate about blog writing. I love to write blogs to benefit my audience.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button